ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে তার বিস্তারিত আলোচনা পাবেন এই পোস্টে

আস্সালামুআলাইকুম

আপনার ব্যবসা বা অন্য যেকোন প্রয়োজনে একটি ওয়েবসাইট খুলতে চাচ্ছেন, কিন্তু জানেন না যে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে ঠিক কি কি জিনিসের প্রয়োজন হয়??

 

ঠিক আছে চিন্তার কোন কারণ নেই কারণ আজকের এই পোস্টেই আমি আপনার এ সক্রান্ত সকল প্রশ্নের জবাব দিয়ে দেব।

 

তাহলে ধৈর্য্য ধরে কন্টেন্টটি ভালভাবে দেখতে থাকুন।

 

ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে?

তাহলে এখন আমরা একে একে জেনে নেব যে ওয়েবসাইট খুলতে কি কি জিনিসের প্রয়োজন হয়।

 

প্রথমেই আমি একটি শর্ট লিস্ট দিচ্ছি ও পরে এর ব্যাখ্যা করবো।

 

নিম্নোক্ত জিনিস দিয়ে একটি ওয়েবসাইট খোলা যায়:

১। ডোমেইন
২। হোস্টিং
৩। এস এস এল সার্টিফিকেট
৪। সি এম এস
৫। থিম
৬। কিছু প্লাগিন্স

 

এখন আমি উপরোক্ত জিনিসগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

 

১। ডোমেইন

ডোমেইন হল একটি ওয়েবসাইটের নাম যার শেষে ডট কম (.com) বা ডট নেট (.net) ইত্যাদি এক্সটেনশন যুক্ত থাকে। এক্সটেনশনসহ একটি ডোমেইনকে ওই ওয়েবসাইটের ওয়েব এড্রেসও বলা হয়।

 

এই যেমন আমার এই ওয়েবসাইটের ডোমেইন হল smnzaman এবং এর সাথে ডট কম এক্সটেনশন যুক্ত হয়েছে, তাই আমার এই ওয়েবসাইটের ওয়েব এড্রেস হল smnzaman.com.

 

মনে রাখবেন প্রত্যেকটি ওয়েবসাইটের ডোমেইন কিন্তু ইউনিক হয় তার মানে হল কেউ যদি একটি ডোমেইন কিনে বা রেজিস্ট্রেশন করে ফেলে তাহলে আপনি আর তা কিনতে পারবেন না যতক্ষণ না সেটির মেয়াদ শেষ হয়ে আর রেজিস্ট্রেশন না করা হয়।

 

বিভিন্ন এক্সটেনশনের ডোমেইনের দাম সম্পর্কে জানুন

 

আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেইন আপনি যেকোন ভাল ডোমেইন রেজিস্ট্রারের কাছ থেকে কিনতে পারেন। এই যেমন নেমচিপ (Namecheap), গোড্যাডি (GoDaddy) ইত্যাদি হল ভাল মানের কিছু ডোমেইন রেজিস্ট্রার।

 

কিভাবে ডোমেইন কিনতে হয় তার পূর্ণাঙ্গ গাইড এই পোস্টে পাবেন

 

২। হোস্টিং

ডোমেইন এর পর একটি ওয়েবসাইটের গুরুত্বপূর্ণ আরেকটি জিনিস হল হোস্টিং। ডোমেইনের মাধ্যমে আপনি শুধু আপনার ওয়েবসাইটের নামটি রেজিস্ট্রেশন করলেন মাত্র, কিন্তু আপনার সাইটে যে কন্টেন্ট অর্থাৎ যে আর্টিকেল, ছবি, অডিও, ভিডিও ইত্যাদি কোথায় জমা রাখবেন?

 

হ্যা, এজন্য একটি হোস্টিং প্রয়োজন যেখানে আপনি একটি সার্ভারে আপনার সাইটের কনটেন্টসমূহ সংরক্ষণ করতে পারবেন।

 

বিভিন্ন হোস্টিং প্যাকেজের দাম এখানে দেওয়া হল

 

হোস্টিং প্যাকে বিভিন্ন ধরণের কনফিগারেশন থাকে এই যেমন কত জিবি স্টোরেজ, কত ব্যান্ডউইথ থাকবে ইত্যাদি ইত্যাদি।

 

আপনি একটি ভাল মানের হোস্টিং প্যাকেজ নেমচিপ (Namecheap), ব্লুহোস্ট (Bluehost) বা আইপেজ (iPage) থেকে পেতে পারেন।

 

এখানে কয়েকটি মানসম্মত হোস্টিং কোম্পানি নিয়ে আলোচনা করেছি

 

৩। এস এস এল (SSL) সার্টিফিকেট

বর্তমানে এস এস সার্টিফিকেট ব্যবহার করা হয় যাতে করে ইনফরমেশন আরো বেশি নিরাপদ থাকে। আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেইনে এস এস এল সার্টিফিকেট যুক্ত থাকলে দেখবেন যে তা সবুজ রঙের ও একই সাথে পরিবর্তে দেখাচ্ছে।

 

অধিকাংশ ডোমেইন রেজিস্ট্রাররাই এখন এস এস এল সার্টিফিকেট এর অপশন রাখে তাই আপনি নেমচিপ বা গোড্যাডি থেকেই একটি এস এস এল সার্টিফিকেট কিনতে পারেন।

 

৪। সি এম এস (CMS)

একটি ওয়েবসাইট তৈরির ক্ষেত্রে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস। হ্যা, সি এম এস বা কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম নির্ধারণ করে যে একটি সাইটের স্ট্রাকচার কেমন হবে।

 

ডোমেইন ও হোস্টিং কেনা হয়ে গেলে একটি সি এম এস ইন্সটল করে নিতে হয়।

 

অনেক সি এম এস আছে তবে বর্তমানে সবথেকে জনপ্রিয় সি এম এস হল ওয়ার্ডপ্রেস (WordPress), তাই আপনার উচিত হবে ওয়ার্ডপ্রেস সি এম এস টি ইন্সটল করে নেওয়া

 

কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করতে হয় তা এই পোস্টে দেখিয়েছি

 

৫। থিম

একটি সুন্দর ওয়ার্ডপ্রেস থিম আপনার সাইটের সৌন্দর্য ও পারফর্মেন্স বহুগুনে বাড়িয়ে দিতে পারে, তাই আপনার উচিত একটি ভাল মানের প্রিমিয়াম থিম ওয়েবসাইটে ব্যবহার করা।

 

বর্তমানে জেনারেটপ্রেস (GeneratePress) হল অন্যতম একটি ভাল থিম যা ব্যবহার করে আপনিও আপনার সাইটে পেতে পারেন একটি অন্যান্য লুক ও পারফর্মেন্স।

 

৬। কিছু প্লাগিন্স

ওয়ার্ডপ্রেস সি এম এস এর সুবিধা হল তা বিভিন্ন প্লাগিন ব্যবহার করে সহজেই কাস্টমাইজ করা যায়।

 

বেশ কিছু প্লাগিন্স রয়েছে যা ব্যবহারে আপনি আপনার সাইটটিকে মনের মোট সাজাতে ও ব্যবহার করতে পারেন।

 

তো প্রিয় বন্ধুরা, আশা করি আপনারা জানতে পেরেছেন যে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে!

 

এখন মূল ব্যাপার হল ওয়েবসাইটের উক্ত বিষয়গুলো সরাসরি কোম্পানিগুলোর কাছ থেকে কিনতে হলে ইন্টারন্যাশনাল মাস্টারকার্ড থাকতে হয় যা আমাদের দেশের অধিকাংশের নেই আবার অনেকের তা থাকলেও নতুন অবস্থায় ওয়েবসাইট ভুলভাল ভাবে সেটিং করেন ফলে পরবর্তীতে অনেক সমস্যায় পড়তে হয়।

 

তাই ওয়েবসাইট তৈরী করতে আপনি আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন এই নাম্বারে: 01797-170200

*ইমোতে ও মেসেজ বা কল দিতে পারেন।

 

আমি আপনাকে একটি মানসম্মত ওয়েবসাইট তৈরি করে দিতে পারবো যেখানে সব কিছুই সরাসরি বিদেশী কোম্পানির কাছ থেকে কেনা হবে।

 

আজ এ পর্যন্তই। ভাল থাকবেন।

আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্টে জানান আর ভাল লাগলে অবশ্যই শেয়ার করুন

3 thoughts on “ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে তার বিস্তারিত আলোচনা পাবেন এই পোস্টে”

  1. ওয়েবসাইট এর মানথলি ফি কত??
    আপনার লিখায় সব ক্লিয়ার বুঝলে ও মানথলি ফি সম্পর্কে যদি কাইন্ডলি বিস্তারিত লিখেন, উপকৃত হব।

    • এখানে বাৎসরিক খরচ দেখিয়েছি আর এখানে কোন মাসিক ফি নেই। আশা করি বুঝতে পেরেছেন!!

      ধন্যবাদ

  2. এখানে বাৎসরিক খরচ দেখিয়েছি আর এখানে কোন মাসিক ফি নেই। আশা করি বুঝতে পেরেছেন!!

    ধন্যবাদ

Leave a Comment